মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান। ১৯৫৪ ও ১৯৫৫ সালের উপর্যুপরি ভয়াবহ বন্যার পর বন্যার ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে ১৯৫৭ সালে জাতিসংঘের অধীনে গঠিত ক্রুগ মিশন এর সুপারিশক্রমে এতদঞ্চলের পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা ও উন্নয়নের লক্ষ্যে ১৯৫৯ সালে পূর্ব পাকিস্তান পানি ও বিদ্যুৎ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (ইপিওয়াপদা) গঠন করা হয়। বর্তমান বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (বাপাউবো) ইপিওয়াপদা এর পানি উইং হিসেবে দেশের বন্যা নিয়ন্ত্রণ, নিষ্কাশন ও সেচ প্রকল্প বাস্তবায়ন করে কৃষি ও মৎস্য সম্পদের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে দেশের পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনায় প্রধান সংস্থা হিসেবে কার্যক্রম আরম্ভ করে। স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সনের মহামান্য রাষ্ট্রপতির আদেশ নং ৫৯ মোতাবেক ইপিওয়াপদা এর পানি অংশ একই ম্যান্ডেন্ট নিয়ে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (বাপাউবো) সম্পূর্ণ স্বায়ত্বশাসিত সংস্থা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। অতঃপর সংস্কার ও পুনর্গঠনের ধারাবাহিকতায় জাতীয় পানি নীতি-১৯৯৯ ও জাতীয় পানি ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা-২০০৪ এর সাথে সামঞ্জস্য রেখে বাপাউবো আইন, ২০০০ প্রণয়ন করা হয়। এ আইনের আওতায় মাননীয় মন্ত্রী, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় এর নেতৃত্বে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট পানি পরিষদের মাধ্যমে বোর্ডের শীর্ষ নীতি নির্ধারণ ও ব্যবস্থাপনা পরিচালিত হচ্ছে। জামালপুর পওর বিভাগ এর কার্যক্রম ১৯৯৯ সাল হতে শুরু হয়। তৎপূর্বে টাংগাইল পওর বিভাগের একটি উপ-বিভাগ হিসেবে জামালপুর জেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের কার্যক্রম চালু ছিল।

 

বাংলাদেশের উত্তর সীমান্তে গারো পাহাড়ের পাদদেশে নৈসর্গিক দৃশ্য ও নয়নাভিরাম  প্রাকৃতিক লীলাভূমি যমুনা, ব্রক্ষ্মপুত্র, ঝিনজিরাম, ঝিনাই ও বানার নদীর পলি বিধৌত অববাহিকায় জামালপুর জেলা অবস্থিত। এ অঞ্চলের জনগণের প্রধান সমস্যা নদী ভাঙ্গন।  বন্যা এবং নদী ভাঙ্গনের কারণে এ জেলায় পানি সম্পদ উন্নয়নের ব্যাপক সম্ভাবনা থাকলেও এ অঞ্চলের জনগন দীর্ঘদিন অবহেলিত ছিলো। এ জেলার পশ্চিম পার্শ্ব দিয়ে প্রায় ৯০ কিঃমিঃ জুড়ে যমুনা নদী প্রবাহিত হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবে নদী ভাঙ্গনের তীব্রতা ও ব্যাপ্তি উভয়ই বেশী। নদী ভাঙ্গনের কারণে এ জেলার সবকটি উপজেলার বহু সংখ্যক গ্রাম নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। নদীভাঙ্গনের কারণে তীরবর্তী এলাকায় বসবাসকারী বিরাট জনগোষ্ঠী মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন এবং অনেকে ভূমিহীন হয়ে তাদের জন্মস্থান ত্যাগ করতেও বাধ্য হয়েছেন। এতদঞ্চলের পানি সম্পদ উন্নয়নের লক্ষ্যে ১৯৯৯ সালে জামালপুর জেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী’র দপ্তর প্রতিষ্ঠা করা হয়। প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকেই এ জেলার পানি সম্পদ উন্নয়নে পানি উন্নয়ন বোর্ড অবদান রেখে যাচ্ছে।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter